ঢাকাWednesday , 30 March 2022
  1. blog
  2. অপরাধ
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক খবর
  5. আবহাওয়া
  6. ইসলাম
  7. কুয়াকাটা এক্সক্লুসিভ
  8. খেলাধুলা
  9. জনদুর্ভোগ
  10. জাতীয়
  11. জেলার খবর
  12. তথ্যপ্রযুক্তি
  13. দূর্ঘটনা
  14. বিনোদন
  15. রাজনীতি
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মহিপুরে পুর্নবাসনের দাবীতে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের অনশন।

rabbi
March 30, 2022 10:21 am
Link Copied!

মোঃ মনিরুল ইসলাম :

মহিপুরে পূর্ণবাসনের দাবিতে অনশন করেছে শতাধিক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। বুধবার সকাল ১০টায় মহিপুর শেখ রাসেল সেতুর নিচে পূর্নবাসন দাবিতে শতাধিক ব্যবসায়ীরা অনশন করেন। এ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন মহিপুরের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। এ সময় ব্যবসায়ীরা ক্ষুব্ধ হয়ে বলেন,গত দুই বছর করোনার সুরক্ষার জন্য সারাদেশের ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিলো এসময় আমাদের লোকসান দিতে দিতে পুঁজি হারিয়েছে নিঃস্ব হয়ে গেছি। সংসারের খাবার জোগাড় করতে পারছিলাম না। করোনা পরিস্থিতি ঠিক হলে বিভিন্ন এনজিও থেকে লোন নিয়ে আবারও ব্যবসা শুরু করেছিলাম কিন্তু হঠাৎই সড়ক ও জনপদের উচ্ছেদ অভিযানে আমাদের আবারো নিঃস্ব করে দিলো।এখন কিস্তির টাকা কোথা থেকে জোগাড় করবো তাও ভেবে পাচ্ছিনা আত্মহত্যা করা ছাড়া কোন উপায় নেই আমাদের।

এসময় মহিপুরের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী বিধান বলেন,মহিপুর একটি ছোট্র হাট ছিলো আমাদের পূর্বপুরুষরা অক্লান্ত পরিশ্রমে পটুয়াখালীর মধ্যো অন্যতম শহরে রুপান্তরিত হয়েছে। আমাদের পূর্বপুরুষদের ধারাবাহিকতায় এক প্রজন্ম থেকে আরেক প্রজন্ম ব্যবসায় করে আসছি। আমাদের জীবন জীবিকার একমাত্র উৎস ব্যবসায় আমরা দোকান ভাঙ্গার পর থেকে মানবেতর জীবনযাপন করতেছি। যতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের পূর্ণবাসন না করা হবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা অনশন থেকে উঠবো না। বাড়িতে গিয়েও খেতে না পেয়ে মরে যাব তার চেয়ে এখানে থেকে মরা অনেক ভালো।

এসময় আরো বক্তব্য রাখেন ব্যবসায়ী মাসুম তিনি বলেন,আমরা অত্যন্ত ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আমাদের উপার্যনের একমাত্র উৎস ব্যবসায়।এ ব্যবসায় বন্ধ থাকলে আমাদের ছেলে সন্তান অনাহারে ভুগবে তাই আামাদের ছেলে সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে আমাদের পূর্নবাসনের ব্যবস্থা করেন।

আরো বক্তব্য রাখেন ব্যবসায়ী মতিন তিনি বলেন,আমাদের পূর্নবাসন না করে দিলে আমরা এ অনশন কর্মসূচি চালিয়ে যাব। আমরা খুবই দরিদ্র শ্রেণির মানুষ আমাদের পূঁজি কম তাই ছোট ব্যবসায় করি।সেটিও যদি বন্ধ হয়ে যায় পরিবার চালানোর মতো কোন পথ আমাদের থাকবে না।

উল্লেখ্য ,গত সোমবার ২২ শে মার্চ সকাল থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত শহরের সদর রোড কুয়াকাটা পর্যটন নগরীসহ বাজারের ভিতরে মহিপুর প্রেসক্লাব সহ যেসব দোকান সড়ক ও জনপদের খতিয়ান ভুক্ত সম্পত্তিতে অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে উল্লেখ করে এক্সিভেটর দিয়ে সকল প্রকার অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দেয়া হয়। এদিকে ব্যবসায়ীদের দাবী, প্রায় পঞ্চাশ বছর ধরে তারা সরকারি জায়গায় ক্ষুদ্র ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে তবে কোন প্রকার পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণ ছাড়াই তাদের উচ্ছেদ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ব্যবসায়ীরা। এসময় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন ক্ষতিগ্রস্থ অনেক ব্যবসায়ী।প্রত্যেক দুই তিন বছর পরপর উচ্ছেদ অভিযানের নামে কখনো ভূমি অফিস,কখনো পানি উন্নয়ন বোর্ড কখনো সড়ক ও জনপথ অফিসের বিভিন্ন কর্মকর্তারা সর্বস্ব গুটিয়ে দিচ্ছেন তাদের।সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২ টা পর্যন্ত অনশন কর্মসূচি পালন করবে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।তবে সকল ব্যবসায়ীদের কন্ঠে একটিই দাবি শুনতে পাওয়া যায়।সরকারের কাছে জোর দাবি সরকার যেন আমাদের পূর্নবাসন করে নতুন ব্যবসা করার সুযোগ দান করে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
x