1. admin@nirvulbarta.com : akas :
  2. mdjahidkuakata@gmail.com : jahid :
  3. nirvulbarta@gmail.com : rabbi :
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৮:২৭ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। যোগাযোগঃ- ০১৭১২৭৪৫৬৭৪
শিরোনামঃ
শোকের মাস আগস্ট শুরু সংক্রমণে মানুষের যাত্রা ৭–১৪ আগস্ট এক কোটি টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মহিপুরে আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে এম এ খায়ের মোল্লা গ্রুপের বেকু মেশিন দিয়ে ফসলী জমি কর্তন ॥ মিন্টুর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র মূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার সহ নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ‘কবি পারভীন আমিন’ অনিশ্চিত যাত্রা শিক্ষার্থীদের – বাদ সাধছে করোনা সাকিবের কী হবে মৎষ্য বন্দর আলিপুরে মৎস্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ যেদিন তালাক সেদিন বিয়ে- হতাশার বানী নিয়ে পলাশের জীবন যুদ্ধ ॥ বাজেট কাল্পনিক ছাড়া কিছুই নয় : বিএনপি চায়ের দাম অর্ধেক নেবেন দোকানি – বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য কাকাতুয়ার শেখানো বুলির মতো-তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। পুরুষ-সমাচার হিমশিম খাচ্ছে উন্নত বিশ্বও সাইবার দুর্বৃত্তদের ঠেকাতে করোনা ভাইরাস” তাজমহল মাস্তানতন্ত্র কায়েম করা হয়েছে: মির্জা ফখরুল এখন ঢাকায় মেট্রোরেলের দ্বিতীয় ট্রেন সেট কলাপাড়ায় ঘূর্নিঝড় ইয়াস’র প্রভাবে ইটের ভাটার বেরি বাঁধ ভেঙ্গে ব্যাপক ক্ষতি, প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে থানায় মিথ্যা মামলা ॥ রাষ্ট্রের কাছে জনগণের আমানত – সাক্ষাৎকারে : মুফতি মিযানুর রহমান সাঈদ “মা” “এহকাল” আমলাতন্ত্রের কুট কৌশল তরুণীকে যৌন নির্যাতন, বেঙ্গালুরু থেকে গ্রেফতার-৬ অনলাইন ব্যবসার সর্বাধিক সুবিধা কাজে লাগাতে, ডাক অধিদপ্তরকে: প্রধানমন্ত্রী জোয়ারে ক্ষতিগ্রস্থ্য উপকূলীয় এলাকা ভারতে যৌন নির্যাতনে ঢাকার যুবক আটক অশ্বিন ভাঙবেন মুরালির রেকর্ড বারবার নয়, বিয়ে একবারই করব মা’ বলছে– কবিতাটি ভালো লাগলে পেইজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন— বাংলাদেশই সেরা ওয়ানডে দল আহমদ শফীকে হত্যার ‍অভিযোগের মামলায় এক আসামি গ্রেপ্তার সামান্থার সাধ প্রেম করিতে বন্দুকধারীর গুলিতে যুক্তরাষ্ট্রে নিহত ৮ আশ্রয়কেন্দ্রে ফুটফুটে ছেলেসন্তানের জন্ম ইয়াসের আঘাতে লন্ডভন্ড ওডিশা ও পশ্চিমবঙ্গের উপকূল “আমার দেশ” একান্ত না বলা কথা– সত্য” স্বার্থন্বেসী “বন্যার বেদনা” খুলনায় রাতের জোয়ার নিয়ে দুশ্চিন্তা,নদীর বাঁধ ভেঙে গেছে ১৮টি স্থানে ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ এর প্রভাবে কুয়াকাটা সহ উপকূলীয় এলাকার শত শত পরিবার পানিবন্দি মহিপুরে জল দস্যু নাসির বাহীনি কর্তৃক দিন দুপুরে কুপিয়ে দুজনকে গুরুতর যখম করার অভিযোগ ॥ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গাছ কাটা বন্ধ চেয়ে নোটিশ দুদকের দুর্নীতি রোধে সাত সদস্যের কমিটি প্রচ্ছন্ন বার্তা? বিজেপির নীতির বিরুদ্ধে ভবন বানিয়ে ফেলেছে নকশা ছাড়াই এফবিসিসিআই হারুন ইজাহার ‘যুব হেফাজত’ গঠন করতে চেয়েছিলেন অনুমোদনহীন বাল্কহেড অবাধে চলছে,পদ্মায় ঘটছে দুর্ঘটনা হেফাজত থেকে পদত্যাগ করা মুফতি আবদুর রহিম কাসেমী গ্রেপ্তার খালেদা জিয়া আগের চেয়ে ভালো আছেন, অক্সিজেন দিতে হচ্ছে: ফখরুল ডায়রিয়া, কলেরা, না অন্য কিছু মামুনুলকে ফের ৫ দিন রিমান্ডে পেল পুলিশ দুই দশকে ২৩ বার সুন্দরবনে আগুন দিনাজপুরে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৫ শহীদ বুদ্ধিজীবী আবদুর রহমান মুজিব বন্দী হলেন যে রাতে উৎসাহ বাড়াতে কার্ডে লেনদেনে বিশেষ প্রণোদনা দরকার ২৬ বার তাগাদা আমানতের টাকা ফেরত পেতে দুই কোটি টিকা আনা সরকারের লক্ষ্য কুয়াকাটায় ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন পার্শ্ববর্তী ভূমি হুমকির মুখে।। মহিপুর ১ ব্যাগ টাকাসহ ১ চোর আটক। কুয়াকাটায় অপহ্নত কিশোরীকে উদ্ধার॥ থানায় মামলা কুয়াকাটায় ইউ এন ও কর্তৃক গণমাধ্যম কর্মীকে শারীরিক নির্যাতনের ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় ॥ মহিপুরে দুই গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ১২ ॥ গুরুতর-২ ॥ কুয়াকাটা পৌরসভার তুলাতলী ২০ শয্যা বশিষ্টি হাসপাতালের সাথে সড়ক যোগাযোগে জনর্দূভোগ ॥ পটুয়াখালীর মহিপুরে চায়ের দোকান লুটের মামলা শতভাগ মিথ্যা প্রমাণিত ॥ হয়রানীর স্বীকার ৫ আসামী ॥ কলাপাড়ায় উপ-নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও সমর্থকদের মারধর আহত-৮, সুষ্ঠ ভোট গ্রহণ নিয়ে শংকায় ভোটাররা ॥ ভাষা আন্দোলনের সুবর্ণজয়ন্তী স্মরণে প্রকাশ পেয়েছিল একুশের পটভূমি: নৌকার ভরাডুবির শংকায় স্বতন্ত্র প্রার্থীদের সমর্থকদের মারধর আহত-১। নারী সমর্থকদের ইজ্জৎ লুটে নেয়ার হুমকী ॥ কুয়াকাটায় কাউন্সিলর কর্তৃক ভূমি জোর-যবর দখলের অভিযোগ ॥ কুয়াকাটার মহিপুরে বিড পুলিশিং ও আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত। মহিপুরে ভূমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে চাঁদাবাজী মামলা ॥ নৌকা প্রতীকে চেয়ারম্যান পদ-প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন প্রত্যাশী মহিপুর থানা ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ শোয়াইব খান ॥ ছবির ফ্রেমে কুয়াকাটায় ৬ গণধর্ষণে অভিযুক্ত ও ১৭টি বিভিন্ন মামলার আসামী নাসিরকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৮ ॥ “যদি হয়ে যায়” কেমন আছেন ? কুয়াকাটায় জলদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী কর্তৃক অপহরণকৃত জেলে ও ট্রলার উদ্ধার হলেও উদ্ধার হয়নি মালামাল ॥ কলাপাড়ায় রেকর্ডীয় ভূমি মালিকের দখলীয় ভূমিতে – ভূমিহীনদের বসতঘর ণির্মানের অনুমতি দিয়ে হয়রানী অব্যহত ॥ কলাপাড়ায় কাউন্সিলর পদে ব্যবসায়ী নেতা সাংবাদিক বিপুর মনোনয়ন দাখিল মহিপুরে ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নবাসীর প্রত্যাশা অবসর প্রাপ্ত অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন সিকদার হোক- মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর মনোনীত নৌকা মার্কার র্প্রাথী ॥ কুয়াকাটায় মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের বনভোজন ও কেন্দ্রীয় নের্তৃবৃন্দদের সংবর্ধনা ॥ ১২ হাজার ৬শ হত দরিদ্র খাদ্রসামগ্রী ত্রান পাচ্ছে ১৫শ’ বাকী সকলের পাওয়ার আবেদন ॥ বিএমএসএফ এর কেন্দ্রীয়-সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হলেন তুষার হালদার কুয়াকাটা পৌর নির্বাচনে নৌকা মার্কার পরাজয়ে- প্রকৃতি আহত ॥ মহিপুর থানা শ্রমিকলীগের সভাপতি কর্তৃক চাঁদাবাজীসহ ভূমি জোরযবর দখলের তান্ডবে আহত-১ ॥ কলাপাড়া উপজেলা যুবলীগ’র সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তফা কামালকে দল থেকে বহিস্কার ॥ কলাপাড়া আন্ধার মানিক নদীর মোহনায় জলদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী কর্তৃক ট্রলার ডাকাতি, অপহরণ-১ ॥ মহিপুরে ৯ গনধর্ষনের পর পলাতক বনদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী রয়েছে প্রশাসনের কড়া নজরদারীতে ॥ ক্লাস চলছে মাইনাস ৫১ ডিগ্রিতেও আমাদের একটাও মিটবে না?ভারতের সব চাহিদা মেটাব চিরতরে নির্যাতনকে কবর দিতে হবে: আইজিপি ইশরাকের বাসায় হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ নেতা-কর্মীদের দেশপ্রেম ও মানবিকতাবোধ বাড়বে ‘বঙ্গবন্ধুর লেখা বই পড়লে চাকরি, বেতন স্কেল ৫৬৫০০ ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ে আইএফআরসি সিনিয়র অফিসার নেবে বিপর্যয়ের শঙ্কা পাটপণ্য রপ্তানিতে দুই দিন ধরে তুষারঝড়ে আটকা হাজারো যানবাহন বিএনপি’ মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন দেখেও দেখে না : তথ্যমন্ত্রী ২০২২ সালে পদ্মা সেতু দিয়ে যান চলাচল : কাদের যৌন মিলনের পরে এই ৫টি কাজ করলে, বিপদে পড়তে পারেন! উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া একনজরে ‘পদ্মা সেতু এদেশের মানুষের পৈতৃক সম্পত্তি, তবে বিএনপির নয়’ অসাম্প্রদায়িক চেতনার দেশ বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাঘারপাড়ায় ধানক্ষেত থেকে ২১ টি বোমা উদ্ধার যেভাবে এসেছিল মার্কিন পত্রিকায় ১৬ ডিসেম্বর ১৯৭১ হেফাজতে ইসলামের ছাতার নিচে স্বাধীনতাবিরোধীরা : হানিফ অগণতান্ত্রিক পন্থা খুঁজছে বিএনপি : কাদের শাহরুখের পাঠান ছবিতে সালমান ফোর্বসের ১০০ প্রভাবশালী তারকার তালিকায় বলিউডের জয়জয়কার ‘ যতদিন শারীরিক সক্ষমতা থাকবে, ততদিন রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকবেন শেখ হাসিনা ’ রাজনীতির হাটে মির্জা ফখরুল বিক্রি হওয়া রাজনীতিবিদ: হাছান মাহমুদ ৫ প্রস্তাব বিবেচনায় আছে আলেমদের : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিজয় দিবস উদযাপনে ৭ নির্দেশনা ভাস্কর এবং মূর্তির বিষয় আলোকপাত কর্মকর্তা নেবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সুখবর, চাকরিপ্রার্থীদের জন্য দুটি বিসিএস আসছে ৬৪ পৌরসভার ভোট ৩০ জানুয়ারি আরব আমিরাতে অস্ত্র বিক্রি করতে সফল ট্রাম্প ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামুনুলের বিরুদ্ধে মামলা নেয়নি আদালত গাছে বেঁধে দপ্তরীকে পেটানো সেই যুবলীগ নেতা গ্রেফতার বর্ণচোরায় আওয়ামী লীগই পরিণত হয়েছে: মির্জা ফখরুল করোনায় সংগীতার সেলিম খানের মৃত্যু বদলে গেলো বঙ্গবন্ধু টি টোয়েন্টি কাপের সূচি হাশরের শেষ তিন আয়াত পাঠের ফজিলত মনোনয়ন বিক্রিতে শিথিলতা আওয়ামী লীগের বলয় ভাঙছে এমপি-মন্ত্রী প্রভাবশালীদের পদ্মাসেতু আজ দৃশ্যমান প্রধানমন্ত্রীর দক্ষ নেতৃত্বে : ওবায়দুল কাদের অপরাধের তদন্ত শুরু জো বাইডেনের ছেলের বিরুদ্ধে ‘যুক্তরাষ্ট্রকে যুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে ইসরাইল’ সততা ও নিষ্ঠার সাথে কমিটি করেছি মহিপুরে নানা অয়োজনে উদযাপিত হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬ তম জন্মদিন। মহিপুরে গুড নেইবারস বাংলাদেশ’র ১৬০ পরিবারের মাঝে ত্রান সামগ্রী বিতরণ ॥ কলাপাড়ায় ট্রলি চলাচল বন্ধ ও নিরাপদ সড়কের দাবীতে মানববন্ধন মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেন মুক্তা বেগম, কলাপাড়ায় ট্রলিচাপায় ছেলের পর আহত মায়ের মৃত্যু !! How you can Protect Sensitive Files in International Deals মহিপুরে ৬৫৫ পিচ ইয়াবাসহ দুই নারী ব্যবসায়ী আটক।। মহিপুর বৃদ্ধাকে কুপিয়ে জখম Wise Software With regards to Entrepreneurs Mail Order Bride Tips On How To Meet And Get An Actual Mail Order Wives 2022 কুয়াকাটার ফাসিপাড়ায় কৃষক মাঠ দিবস পালন

ডায়রিয়া, কলেরা, না অন্য কিছু

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৪ মে, ২০২১
  • ৩৭৬ বার পঠিত

দৈনিক নির্ভুল বার্তা ডেস্কঃ

বরিশাল সদর হাসপাতাল ডায়রিয়া রোগীতে ঠাসা। স্থান সংকুলান না হওয়ায় হাসপাতালের সামনে শামিয়ানা খাটিয়ে রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। সম্প্রতি হাসপাতালের সামনে। ফাইল ছবি।

দেশের আনাচকানাচে ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার খবর আসছে এক মাস ধরেই। সংবাদপত্রের মফস্বলের পাতা থেকে এ খবরগুলো দৃষ্টিগ্রাহ্য পাতার কোনায়, কোথাও কোথাও করোনার খবরের পাশেও জায়গা পেতে শুরু করেছে।

বাংলাদেশে সাধারণত বর্ষার আগে এবং বর্ষা ও বন্যার পরে ডায়রিয়ার বতর লাগে। ঢাকার মহাখালীর কলেরা হাসপাতাল নামে পরিচিত আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশে (আইসিডিডিআরবি) শামিয়ানা টাঙিয়ে দিনরাত চিকিৎসা চলে। তবে এ বছর পরিস্থিতি একেবারেই অন্য রকম। বৃষ্টি নাই, তাপমাত্রা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। এখন পর্যন্ত এ বছরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা গত সপ্তাহে ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ওঠে, যা স্বাভাবিকের চেয়ে ১৩ ডিগ্রি বেশি। অন্যদিকে মার্চে গড়ে ২৫ মিলিমিটার ও এপ্রিলে কমপক্ষে ৯০ মিলিমিটার বৃষ্টি হওয়ার কথা। কিন্তু মার্চ ছিল মোটামুটি বৃষ্টিশূন্য। এপ্রিলের শেষ সপ্তাহ পর্যন্ত (২৬ এপ্রিল) মাত্র ৩৯ মিলিমিটার বৃষ্টির দেখা মিলেছে। দক্ষিণের জেলা বরগুনায় এপ্রিলে স্বাভাবিক গড় বৃষ্টিপাত ৯৩ মিলিমিটার। সেখানে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত বৃষ্টি হয়েছে মাত্র ২৪ মিলিমিটারের মতো।

বৃষ্টি কম হওয়ার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে জ্যামিতিক হারে বৃদ্ধি পাওয়া লবণাক্ততা। বরিশাল বিভাগের ৪২টি নদ-নদীর প্রায় সবই এখন লবণাক্ততার ঝুঁকির মুখে। বরিশাল মৃত্তিকাসম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের (এসআরডিআই) জরিপ বলছে, কীর্তনখোলা, সুগন্ধা, তেঁতুলিয়া, মাসকাটাল, কালাবদর, বলেশ্বর, পায়রা, বিষখালী, আন্ধারমানিক, লোহালিয়া, রামনাবাদ, আগুনমুখা প্রভৃতি নদ-নদীর পানিতেও লবণাক্ততার মাত্রা আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে এবং দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে। বছর দশেক আগেও এপ্রিল থেকে মে-জুন সময়ে এসব নদ-নদীতে লবণাক্ততার মাত্রা অল্প হারে বাড়ত। এখনকার প্রবণতা হলো, এসব নদ-নদীতে লবণাক্ততার মাত্রা ডিসেম্বর-জানুয়ারি থেকে অস্বাভাবিকভাবে বাড়তে থাকে। ভারী বৃষ্টি না হলে লবণাক্ততা কমে না।

মহামারির কেতাবি সংজ্ঞায় যা-ই বলা হোক না কেন, দক্ষিণাঞ্চল তথা বরিশাল বিভাগে ডায়রিয়া যে অতি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, ১৯৯৯ সাল থেকে শুরু করে এ বছর পর্যন্ত এত অল্প সময়ে বিপুলসংখ্যক মানুষের ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার নজির এবারই প্রথম। এটা মহামারির সংজ্ঞায় পড়বে কি না, তা বিশেষজ্ঞরা ভালো বলতে পারবেন।

পাঠকের মনে আছে, ২০১৯ সালে রাজধানীর ডেঙ্গু পরিস্থিতিকে মহামারি বলায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের তখনকার মেয়র সাঈদ খোকন খেপে গিয়েছিলেন। তিনি সংবাদমাধ্যমের কর্মীদের বলেছিলেন, ঢাকার পরিস্থিতিকে সংজ্ঞা অনুযায়ী মহামারি বলা যায় না। বলা বাহুল্য, তিনি সংজ্ঞার ভেদ ভাঙেননি। উপস্থিত সংবাদকর্মীরাও আর কথা বাড়াননি। সে যা-ই হোক, মহামারির যে একটা কেতাবি সংজ্ঞা আছে, তাতে কোনো ভুল নেই। সেই সংজ্ঞায় বলা হয়েছে, টানা দুই সপ্তাহ ধরে প্রতি এক লাখ মানুষের ১৫ জনের চেয়ে বেশি মানুষের মধ্যে সংক্রমণ ঘটতে থাকলে সেই পরিস্থিতিকে মহামারি হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

বরিশাল বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয়ের ভাষ্যমতে, বিভাগের ৪০টি উপজেলার মধ্যে ডায়রিয়া উপদ্রুত ১৮টি এলাকায় ৪০৬টি মেডিকেল টিম কাজ করছে। আর হিসাব বলছে, উপকূলীয় জেলাগুলোতে দাস্ত বা পাতলা পায়খানায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। সংক্রমণের প্রথম স্থানে রয়েছে উপকূলীয় জেলা ভোলা, দ্বিতীয় পটুয়াখালী ও তৃতীয় বরগুনা। যদিও মৃত্যু বেশি বরিশাল জেলায়। এ জেলায় ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত মোট ছয়জন মানুষ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। বাকি চারজনের মধ্যে দুজন পটুয়াখালী ও দুজন বরগুনার।

ডায়রিয়া পরিস্থিতির গুরুত্ব অনুধাবন করে হোক অথবা বরিশালবাসীর উত্তম নেটওয়ার্কের কারণেই হোক, আইসিডিডিআরবির সাত সদস্যের একটি দল মার্চের শুরুর দিকে বরগুনায় যায়। বরগুনা সদরের বুড়িরচর, ঢলুয়া, গৌরীচন্না, ফুলঝুড়িসহ পৌরশহরের বেশ কিছু এলাকায় দলটি গবেষণা চালায়। গবেষকেরা এ সময় আক্রান্ত লোকজনকে পরীক্ষা করে তাঁদের শরীরে কলেরার জীবাণুও পান।

লাগামহীন মাত্রায় ডায়রিয়ার প্রকোপ বাড়তে থাকায় আইসিডিডিআরবি ছাড়াও জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) থেকেও একটি গবেষক দল গিয়ে পরিস্থিতির হালহকিকত বোঝার চেষ্টা চালায়। দলটি ঢাকা থেকে গিয়ে যা জেনেছে, আর জানিয়েছে, তাতে নতুন কিছু নেই। ‘বোকার ফসল পোকায় খায়’ মার্কা একটা উপসংহার তারা উপহার দিয়েছে। দলটি বলেছে, এই অঞ্চলের মানুষ টিউবওয়েলের পানি পান করে। তবে অধিকাংশ মানুষ খাল, নদী বা ডোবার পানি রান্না ও থালাবাসন ধোয়ার কাজে ব্যবহার করেন। ফলে ডায়রিয়ার সংক্রমণ বেশি।

ভুলে গেলে চলবে না, ডায়রিয়া পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগের দোলায় শুধু বরিশাল বিভাগ নয়, সারা দেশই দুলছে। জয়পুরহাটে হঠাৎ করে বেড়েছে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। প্রতিদিন (২৬ এপ্রিল পর্যন্ত হিসাব) জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ৫০ থেকে ৬০ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। হাসপাতালে শয্যার অভাবে মেঝে ও বারান্দায় রেখে রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছে কর্তৃপক্ষ।

বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফরিদা ইয়াছমিন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, শরণখোলায় ডায়রিয়া ও পানিবাহিত রোগের প্রকোপ বৃদ্ধির কারণ পানিসংকট। গত মঙ্গলবার এক দিনেই ২১ জন ডায়রিয়ার রোগী হাসপাতালটিতে ভর্তি হন। শয্যাসংকটের কারণে রোগীদের কাউকে কাউকে মেঝেতে রাখতে হচ্ছে। এ নিয়ে গত ১ থেকে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত ১৪০ জন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন। তবে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা আরও বেশি।

পাহাড়ি জেলা খাগড়াছড়ির সদর হাসপাতালে প্রতিদিনই রোগীর চাপ বাড়ছে। সেখানে গত ফেব্রুয়ারির শেষ দিক থেকে ডায়রিয়ার সঙ্গে নিউমোনিয়া নিয়েও শিশুরা হাসপাতালে আসছে। শিশু ওয়ার্ডে কোনো শয্যা খালি নেই। খুলনা শিশু হাসপাতালে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে গত মাস এপ্রিলের শুরু থেকেই।

উত্তরের জনপদ দিনাজপুরের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ডায়রিয়া ওয়ার্ডে রোগীর জন্য শয্যা আছে ১০টি। কিন্তু গত ২৬ এপ্রিল সকালে ভর্তি ছিলেন ৪৮ জন। জেলা সিভিল সার্জন সংবাদমাধ্যমকে জানান, শুধু জেনারেল হাসপাতালই নয়, ওই দিন জেলার মোট ১২টি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দেড় শতাধিক ডায়রিয়া রোগী ভর্তি ছিলেন। এ ছাড়া ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত বহির্বিভাগে ডায়রিয়াজনিত সমস্যায় চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন ছয় শতাধিক রোগী।

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত ২৬ এপ্রিল সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১২টার মধ্যে ২৯ জন রোগী ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া ও পেটব্যথা নিয়ে ভর্তি হন। লক্ষ্মীপুরের কমলনগরেও পরিস্থিতি ভালো নয়। সেখানকার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও এলাকা থেকে রোগী আসা বাড়ছিল। অনেক রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিতে হয়।

সব মিলিয়ে ডায়রিয়ার প্রকোপের এই তালিকা বড় দীর্ঘ। তবে সব জায়গায় যে গুরুত্বের সঙ্গে সাড়া দিতে হবে, তা নিয়ে কোনো বিতর্ক নেই। ক্ষেত্রবিশেষে হয়তো করোনার চেয়েও বেশি গুরুত্ব দিতে হবে ডায়রিয়াকে।

ভিন্ন উপসর্গের কথা শোনা যাচ্ছে

এবার ডায়রিয়ায় আক্রান্ত মানুষের অনেকেরই বমি ও পায়খানা একসঙ্গে, কোনো কোনো ক্ষেত্রে আগে বমি পরে পায়খানা দিয়ে অসুস্থতা শুরু হচ্ছে। খুব দ্রুত শকে (সাড়া না দেওয়া) চলে যাচ্ছেন রোগী। সাম্প্রতিককালে করোনার উপসর্গ হিসেবে পাতলা পায়খানার কথা শোনা যাওয়ায় স্বাস্থ্যকর্মীরাও দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভুগছেন। অনেক ক্ষেত্রে রোগীর বিভিন্ন ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা–নিরীক্ষা করে ‘ইলেকট্রোলেট ইমব্যালান্সের’ (দেহের খনিজ অসমতা) আভাস মিলেছে এবং সেইমতো চিকিৎসা দিয়ে সুফল পাওয়া গেছে। রোগী মৃত্যুর দুয়ার থেকে ফিরে এসেছেন। তবে যেসব রোগীর শ্বাসকষ্ট বা অন্যান্য জটিলতা আছে, তাঁরা ভুগছেন বেশি। কেউ কেউ মারাও যাচ্ছেন।

আইইডিসিআর ও আইসিডিডিআরবিকে কথিত নতুন উপসর্গ ও তার ব্যাপ্তি নিয়ে ভাবতে হবে। দেখতে হবে করোনার উপসর্গের সঙ্গে নতুন ডায়রিয়ার আসলেই কোনো তাললুকাত আছে কি নেই। প্রতিটি সংকট নতুন সম্ভাবনার, নতুন গবেষণার সুযোগ দেয়। আমরা সেই সুযোগগুলো কি শুধু হাতছাড়াই করে যাব?

সুযোগে স্যালাইন সংকট

রোগীর বাড়তি চাপ আর রোগের লাগামহীন বিস্তারের আলামত থাকলেই চিকিৎসা সামগ্রীর দাম বেড়ে যায়। যেসব স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডায়রিয়া রোগীদের জন্য শয্যা মাত্র ১০টি, সেসব জায়গায় ভর্তি অনেক বেশি রোগী। পটুয়াখালীর বাউফলে ছিলেন ৮০ জন। সম্প্রতি সেখানে ৩ জনের মৃত্যুর খবর রটে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কলেরা স্যালাইনের জন্য হাহাকার পড়ে যায়। কোনো কোনো এলাকায় ৭০ টাকার স্যালাইন ৪০০ থেকে ৫০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায়। দেশের প্রায় সব সিভিল সার্জন একবাক্যে জানিয়েছেন, তাঁদের হাতে যথেষ্ট স্যালাইন মজুত আছে। খাতা আর গোয়ালের হিসাব এ যাত্রায় মিললে ভালো।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের একটা স্বাভাবিক কৌশল হচ্ছে, মজুত ধরে রাখা। তাই ভান্ডারে ওষুধ থাকলেও রোগীর সহচরদের বলেন ‘কিনে আনেন’। যখন একই ওষুধ ১০ জন কিনতে যান, তখন দোকানিরা দাম বাড়ানোর সুযোগ পেয়ে যান। দাম বাড়ে, মজুত বাড়ে, বাজারে আলো নিভে কালো হয়ে যায়। বাড়ির মুরুব্বিদের মধ্যে আমরা সংকটের সময় সমঝিয়ে খরচ করার যে সংস্কৃতি দেখেছি, সেটাই আমরা আমাদের কর্মক্ষেত্রে অনুসরণ করি। এটাও দাম বাড়ার একটা কারণ হতে পারে।

স্যালাইন দিয়ে কি ডায়রিয়া থামানো যাবে

স্যালাইন দিয়ে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীকে বাঁচিয়ে রাখা সম্ভব। কিন্তু ডায়রিয়ার বিস্তার রোধ করে তাকে নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আনতে হলে নিরাপদ পানি সহজলভ্য করতে হবে, সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে আনতে হবে। আমাদের দেশে বৃষ্টি এই কাজটা নিজের খুশিতে করে থাকে। যে বছর তারা দেরিতে আসে, সে বছর আমরা কাহিল হয়ে যাই। অথচ এক বর্ষার পানি ঠিকমতো ধরে রাখতে পারলে তিন বছর ব্যবহার করা যায়। এত অল্প জায়গায় মিঠাপানির এত ভারী বৃষ্টি পৃথিবীর আর কোথাও হয় না। প্রতিবেশীরা নদী আটকাবেই, আমাদের লবণাক্ততা তাতে আরও বাড়বে। কিন্তু বৃষ্টির পানি একটা দিশা দিতে পারে।

আমাদের নিরাপদ পানির বিকল্প ব্যবস্থা করতেই হবে। না হলে কিছুই টিকবে না। শাহবাগ, দোয়েল, শাপলা, কদম, শহীদ মিনার, চারুকলা, বুলবুল, ছায়ানট, নজরুল, রবীন্দ্রনাথ—সবই থাকবে বিপদে।

লেখক ও গবেষক

নিউজটি ভালো লাগলে আপনার সোসাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন।

এই বিভাগের আরো খবর
এই সাইটের কোন নিউজ/অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
x